আকাবির আসলাফ সহ এ যাবত লাখো আলেম উলামার চোখের পানিতে দাড়িয়ে আছে এ ফরিদাবাদ।
ব্যাক্তি মাখদূশ হলে পুরো ঐতিহ্য ও তা’জীম মুছে যাবে এমনটা নয়, অতএব ফরিদাবাদকে চিনতে হলে নিষ্কলুশ ব্যাক্তিদের ইলম-আমল, ইখলাস আর তাকওয়াবান বুযুর্গদের পরিচয়ে চিনুন, জানুন। সম্মান করুন।

সদর সাহেব আর হাফিজ্জী হুজুর থেকে নিয়ে যারা হাল যমানায় মশহুর ফরিদাবাদ সংশ্লিষ্ট ছিলেন, আছেন তাদের নিয়ে লিখতে গেলে বিশাল কয়েকটি বই রচনা করা যাবে তবুও আমার স্মৃতি থেকে এক ঝলক তুলে ধরছি।

আল্লামা আব্দুল হাফীয রহ. এর মতো উসূলের উপর অবিচল মুহাদ্দিস সাহেব হিসাবে তাঁর ইতিহাস শুনুন আর ফরিদাবাদকে হৃদয়ে জায়গা দিন।

যার উসূলী ও তানক্বীদি পাকড়াও এর ভয়ে সাধারণ ছাত্র – উস্তায সহ জাদরেল শিক্ষকগণ পর্যন্ত তটস্থ থাকতেন।

বর্তমান মুহতামিম সাহেব তখনও মুহতামিম হওয়া সত্ত্বেও মুহাদ্দিস সাহেব হুজুরের রুমে কোন জরুরতে ঢুকতে অন্তত কয়েকবার টুপিটাপি ঠিক করে দুই কদম সামনে বাড়তেন আর এককদম পিছাতেন!

বর্তমানে মুহাদ্দিস সাহেব রহ. এর ইলম ও মেযাজের পূর্ণ মীরাসকে ধারণ ও লালন করে চলেন এমন দু’জন শায়খকে দেখে তাঁকে কিছুটা আঁচ করুন।
এক. হযরতুল উস্তায মাওলানা মুতিউর রহমান হাফি.
যিনি নায়েব সাহেব হুজুর নামে প্রসিদ্ধ।
দুই. হযরতুল উস্তায মুফতী আবূ সাঈদ হাফি. যিনি
মুফতী সাহেব হুজুর নামে প্রসিদ্ধ।
যদিও তাঁরা পরিস্থিতির কারণে বর্তমানে চরম কোনঠাসার শিকার।

★ ফরিদাবাদকে হৃদয়ে অঙ্কন করবেন হযরতুল উস্তায মুফতী আব্দুস সালাম হাফি. এর আমল, তাকওয়া ও চাল চলন দেখে।
উস্তাযে মুহতারামের কাছে শামায়েলে তিরমিযী পড়ার পর যখন তাঁকে হাটা চলায় দেখতাম মনে হত যে, জীবন্ত শামায়েলে তিরমিযী হাটছেন। শামায়েলে যেভাবে রাসূল সা. এর হুসনে আওসাফের বিবরণ, তার প্র্যাকটিক্যাল কেউ দেখতে চাইলে হুজুরকে দেখতে পারেন।

★ ফরিদাবাদকে নিয়ে গর্ব করবেন বাহরুল উলূম মাওলানা যিকরুল্লাহ খান হাফি. কে দেখে।
যাকে মসনদে বসিয়ে দিলে কয়েক বৎসর কোন কিতাব সামনে না রেখে ধারাবাহিক আলোচনা করলেও তার ইলমের সাগর থেকে কিঞ্চিত শুন্য হবে মাত্র।

★ ফরিদাবাদকে নিয়ে গর্ব করবেন সাবেক উস্তায, মজলূম মাওলানা নাঈম হাফি. কে স্বরণ করে, আল্লাহ তা’য়ালা তাঁকে নিরাপদে রাখুন এবং নেক হায়াত দান করুন। যার চাল চলন আমল – আখলাক হল সাহাবা ওয়ালা। তাঁকে নামাজে দন্ডায়মান দেখলে মনে হবে কোন সাহাবীয়ে রাসূল দাড়িয়ে আছেন।

⁦▪️⁩ মনে পড়ে গেল উস্তাযে মুহতারাম মুফতী ওসমান সাহেব হাফি. আল্লাহ তা’য়ালা তাঁকেও নিরাপদে রাখুন।
যেন ছিলেন রুহবানুল লাইলি ওয়া ফুরসানুন নাহার।
ইলমকে তাহরীফমুক্ত ও হক্বভাবে প্রকাশ করায় যিনি হলেন অনন্য।

⁦?️⁩ এমন ফখর করার মত অনেক অনেক আসাতিযা ছিলেন, আছেন এবং ভবিষ্যতেও থাকবেন ইনশাআল্লাহ।
ক’জনের নাম আর এখানে তুলে ধরবো! কেউ আবার এর বাহিরের সবাইকে মাখদূশ ভেবে বদ গুমানী করে গুনাহে লিপ্ত না হই। আমরা তো আবার সুগরা – কুবরা মিলিয়ে নতীজা বের করায় খুব পারদর্শী!

কিন্তু যারা এমন ফখর করার মত নিষ্কলুশ ব্যাক্তিত্ব তাঁরাই যুগে যুগে স্বজনপ্রীতি ও জুলমের শিকার হয়েছেন এবং হচ্ছেন। আমাদের প্রতিবাদ অন্যায়ের বিরুদ্ধে মজলুমের পক্ষে।

আল্লাহ তা’য়ালা আমাদেরকে প্রান্তিকতামুক্ত থেকে আদল ও ইনসাফের সাথে আকাবির – আসলাফের আদর্শ অনুরসণ করার তাওফীক দান করুন। সবধরনের বিচ্যুতি থেকে সকলকে হেফাজত করুন।
আমীন ইয়া রাব্বাল আলামীন।

Image may contain: outdoor